ICC World Cup Cricket 2015

A commemorative postage stamp on the ICC World Cup Cricket 2015 (আইসিসি বিশ্বকাপ ক্রিকেট২০১৫) :

Bangladesh Stamp 2015 on Cricket GamesIssued by Bangladesh

Issued on Mar 15, 2015 (০১ চৈত্র, ১৪২১ বঙ্গাব্দ)

Issued for : This is the year 2015 and Bangladesh is showing the signs of a brighter future in the game of cricket. They have confidently moved to the quarter final where the best teams like Pakistan, England and West Indies are struggling to survive. The signs of the brighter future came in to reality when Bangladesh beat England on 9 March 2015. Beating the country where it all started is a big achievement in itself and in such a big stage like world cup is really a delightful fact. Bangladesh Post congratulates the national cricket team for achieving this milestone. And in order to scribe this memory in the pages of History, Bangladesh Post has decided to publish a Commemorative Stamp and a First Day Cover of TK. 10 each, a Data Card of TK. 5 and a special canceller to inspire the Bangladesh Cricket team and viewers in the days to come.

২০১৫ সালে বিশ্বকাপ ক্রিকেটের ইতিহাসে বাংলাদেশ দল এক উজ্জ্বল ভবিষ্যতের সূচনা করে। যেখানে পাকিস্তান, ইংল্যান্ড, ওয়েস্ট ইন্ডিস কোয়ার্টার ফাইনালে পদার্পণের জন্য যুদ্ধ করছে সেখানে বাংলাদেশ দল এক ম্যাচ বাকি থাকতেই গত ৯ মার্চ, ২০১৫ খ্রিঃ তারিখে ইংল্যান্ডকে হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত করেছে। বিশ্বকাপ ক্রিকেটে বাংলাদেশ দল কোয়ার্টার ফাইনালে পদার্পণ করায় বাংলাদেশ ক্রিকেট দল ও ক্রিকেটপ্রেমী আপামর জনসাধারণকে উৎসাহ উদ্দীপনা দেওয়ার জন্য বাংলাদেশ ডাক বিভাগ “আইসিসি বিশ্বকাপ ক্রিকেট ২০১৫” উপলক্ষে ১০/- (দশ) টাকা মূল্যমানের একটি স্মারক ডাকটিকিট, ১০/- (দশ) টাকা মূল্যমানের একটি উদ্বোধনী খাম ও ৫/- (পাঁচ) টাকা মূল্যমানের একটি ডাটা কার্ড ও একটি বিশেষ সিলমোহর প্রকাশ করেছে।

Designer : Anowar Hossain
নকশাবিদ : জনাব আনোয়ার হোসেন

Type : StampMint Condition

No. of Stamps : (One)
স্মারক ডাকটিকিটের সংখ্যা : ১ (এক) টি

Color : Multicolour
রং : বহুরং বিশিষ্ট

Denomination of Stamps : Tk. 10/- (Ten)
স্মারক ডাকটিকিটের মূল্যমান : ১০/- (দশ) টাকা

Size of Stamps : 80 m.m. x 30 m.m.
স্মারক ডাকটিকিটের আকার : ৮০ মি.মি. x ৩০ মি.মি.

Perforation of Stamp : 12.5 micron
স্মারক ডাকটিকিটের ছিদ্রক দূরত্ব : ১২.৫ মাইক্রোন

Qnt. of Stamps : 3,50,000 pcs
ডাকটিকিটের পরিমাণ : ৩,৫০,০০০ পিস

No. of Stamps in each sheet : 50 (Fifty) pcs
প্রতি শীটে ডাকটিকিটের সংখ্যা : ৫০ 
(পঞ্চাশ) পিস

Process of Printing : Offset
মুদ্রণ প্রক্রিয়া : অফসেট

Printer : The Security Printing Corporation (Bangladesh) Ltd., Gazipur
মুদ্রাকর : দি সিকিউরিটি প্রিন্টিং করপোরেশন (বাং) লিঃ, গাজীপুর

About : 

  • The first cricket world cup tournament was hosted in England on June 7, 1975. There is a spice in the history of cricket world cup. In 1971 when rain ruined the fifth day of a test match between Australia & Newzeland in Melbourne, a sixty over match was held to decide the fortunes. And that was the very beginning of the era of Cricket World Cup. Four years after that first cricket world cup was held. Prudential Insurance was the sponsor of the First Cricket World Cup and the tournament was known as Prudential Cup. The Prudential Cup of 1975 and the second World Cup of 1979, both was won by West Indies. But the tables were turned by India in 1983 World Cup when they beat West Indies in the finals.
  • In 1987 the Cricket World Cup venue shifted to sub-continent. And that was the beginning of the Australian domination in the cricket world. India lost to Australia in the finals in the world cup of 1987. As the venue of world cup changed in the 1987, so did the sponsors. Reliance Insurance became the new sponsors of the tournament. This world cup was co hosted by India and Pakistan. The 1992 world cup had its new champion and some new twists in the game of cricket. Pakistan took the cup and the world cup was co hosted by Australia and Newzeland. As per the vision of Kerry Packer, colourful jersey was introduced in the game of cricket. The cricket ball also changed its color from red to white and so did the side screen from white to black.
  • Then came the world cup of 1996 where Srilanka won the world cup and the cup remained under the ages of Asia. But from 1999 to 2007 it was all about Australia when it came to the game of cricket. In 1999 the World Cup trophy gained a new name of ICC Cricket World Cup. And Australia set the world record of winning 3 world cups on the trout consecutively in 1999, 2003 and in 2007. In the world cup of 2011 a new country was added from Asia as the host of cricket world cup and it was Bangladesh. Bangladesh, India and Srilanka co hosted the 2011 world cup. Bangladesh cricket team first participated in 1999 world cup and beat Scotland and Pakistan that year. Bangladesh had shown a lot of promises in the world cup of 2011 but India was the champion of this tournament.
  • ১৯৭৫ সালে ৭ জুন ইংল্যান্ডে সর্বপ্রথম ক্রিকেট বিশ্বকাপের আসর বসে। অবশ্য বিশ্বকাপ ক্রিকেটের ইতিহাসটা একটু অন্য রকম। ১৯৭১ সালে মেলবোর্নে অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের মধ্যকার টেস্ট ম্যাচের পঞ্চম দিনের খেলা বৃষ্টিতে ভেস্তে গেলে বিকল্প ভাবনার ফসল হিসেবে একটি ৬০ ওভারি ম্যাচের আয়োজন করা হয়। সেখান থেকেই ওয়ানডে ক্রিকেট প্রবর্তন। এর চার বছর পর শুরু হয় বিশ্বকাপ ক্রিকেট। সে বছর বিশ্বকাপের স্পন্সর প্রুডেনশিয়াল কাপ। প্রথম বছরের মত ১৯৭৯ সালের দ্বিতীয় বিশ্বকাপের শিরোপাও লাভ করে ওয়েস্ট ইন্ডিস। ১৯৮৩ সালে তৃতীয় বিশ্বকাপ ক্রিকেট। এ বছর থেকে বিশ্বকাপ ক্রিকেটের চ্যাম্পিয়নশীপ চলে আসে এশিয়াতে। ১৯৮৩ সালে তৃতীয় বিশ্বকাপের ভাগিদার হওয়ার সৌভাগ্য হয় ভারতের।
  • ১৯৮৭ সালে ইউরোপের পর বিশ্বকাপের আয়োজক হয় উপমহাদেশ, সেখান থেকেই অস্ট্রেলিয়ার আধিপত্যের সূচনা হয়। অর্থাৎ এবার শিরোপা পায় অস্ট্রেলিয়া। এছাড়া স্বাগতিকের মতো বদলে যায় টুর্নামেন্টের আনুষ্ঠানিক নামও। প্রথম তিন আসরে নামানুসারে সেটি পরিচিত ছিল প্রুডেনশিয়াল কাপ নামে। ১৯৮৭ সালে স্পন্সর বদল হয় রিলায়েন্স এবং টুর্নামেন্টেরও নাম বদলে হয় রিলায়েন্স কাপ এবং যৌথ ভাবে দুই দেশ ভারত-পাকিস্তান আয়োজক হয়। ১৯৯২ সালের আসরের চ্যাম্পিয়ন হয় পাকিস্তান। এই আসর বসে অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডে। এই বিশ্বকাপ ক্যারি প্যাকারের দেখানো পথে হেঁটে ক্রিকেটারদের গায়ে ওঠে রঙিন পোশাক। লাল বল রঙ বদলে হয় সাদা, সাদা সাইটস্ক্রিন কালো।
  • ১৯৯৬ সালে বিশ্বকাপ ঘরে তুলে এশিয়ার দেশ শ্রীলঙ্কা। ১৯৯৯ সাল এবছর থেকেই ফের অস্ট্রেলিয়ার আধিপত্য শুরু। ২০০৩ সালেও জয় যাত্রা অব্যাহত রেখে টানা দ্বিতীয় বিশ্বকাপ শিরোপা ঘরে তুলে অস্ট্রেলিয়া। পরের বিশ্বকাপ অর্থাৎ ২০০৭ সালে চ্যাম্পিয়ন হয়ে শিরোপার হ্যাটট্রিক লাভ করে অস্ট্রেলিয়া। ২০১১ বিশ্বকাপ। ভারত, শ্রীলঙ্কার সাথে বাংলাদেশও আয়োজক হয়। এ বছর শিরোপা লাভ করে ভারত। বাংলাদেশের বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ শুরু হয় ১৯৯৯ সাল থেকে। সে বছর স্কটল্যান্ড ও পাকিস্তান এই দুটি দেশকে হারানোর গৌরব লাভ করে বাংলাদেশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *